প্রশ্ন : dolancer.com থেকে আয় শরীয়ত সম্মত কি না ?

প্রশ্ন : dolancer.com থেকে আয় শরীয়ত সম্মত কি না ?

আমি এই প্রশ্ন কয়েক জন স্মমানিত মুফতি সাহেবদের কাছে করে ছিলাম তারা এই বেপারে কোন কিছু বলতে পারেননি আর আমি তিনাদের কে এই বেপারটি অনেক চেস্টা করে ও বুঝাতে পারিনি আশা করি আপনি আমাকে এই সাইটির বেপারে জানিয়ে ঈমান ও আমাল হেফাজতে সাহায্য করবেন।

===================================

আজকাল সবাই ইন্টারনেট এ আয় করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে । তাই যারা ইন্টারনেট এ আয় করতে ইচ্ছুক তাদের সাথে একটি সাইট এর পরিচয় করিয়ে দিবো ।
www.dolancer.com

পরিচয় : এটি মূলত সর্বপ্রথম শুরু হয় আমেরিকা । সুদীর্ঘ বার বছর ধরে তারা তাদের সার্ভিসটি এখনও চালু রাখতে পেরেছে । এই সাইটটি সম্পর্কে বারাক ওবামা সহ আরও বিখ্যাত ব্যাক্তিদের মন্তব্য বিস্তারিত দেখুন :
আরও জানতে : http://www.dolancer.com/index.php/about

এটি বাংলাদেশ এর যাত্রা খুব বেশীদিন হয়নি শুরু করেছে কিন্তু এরই মধ্যে 17800 মেম্বার পেয়েছে এবং প্রতিদিন আরও পাচ্ছেন ।

ঢুকতে যা যা লাগবে : এটি ফ্রি কোনো সাইট না তাই এখানে তিনটি প্যাকেজ আছে

১ । বেসিক ( ৭০০০ টাকা )

২ । মডারেট ( ২১০০০ টাকা )

৩ । এডভান্স ( ৩৫০০০ টাকা )

কি কি পদ্ধতিতে আয় করতে পারবেন ?

আপনারা এখান থেকে ৫টি পদ্ধতিতে আয় করতে পারবেন । নিচে এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হল :

পদ্ধতি ১ : ক্লিক টু আর্ন /পেইড টু ক্লিক ( পিটিসি)

এটা আমাদের নিকট খুবই পরিচিত । আপনাকে কিছু বিজ্ঞাপনের লিংক দেওয়া হবে তাতে ক্লিক করলেই আপনি ইন্সট্যান্ট টাকা পাবেন । সদস্যতা অনুযায়ী আপনি বিজ্ঞাপনের লিংক পাবেন । যেমন

১ । বেসিক –> আপনারা এই প্যাকেজ এর সদস্য হলে প্রতিদিন ১০০ টি লিংক পাবেন এবং প্রতিটি বিজ্ঞাপনে ক্লিক এর জন্য মিনিমাম ০.১ সেন্ট ( ৭০পয়সা )

২ । মডারেট ( ২১০০০ টাকা ) আপনারা এই প্যাকেজ এর সদস্য হলে প্রতিদিন ৩০০ টি লিংক পাবেন এবং প্রতিটি বিজ্ঞাপনে ক্লিক এর জন্য ০.১ সেন্ট

৩ । এডভান্স ( ৩৫০০০ টাকা ) আপনারা এই প্যাকেজ এর সদস্য হলে প্রতিদিন ৫০০ টি লিংক পাবেন এবং প্রতিটি বিজ্ঞাপনে ক্লিক এর জন্য ০.১ সেন্ট

লিংক গুলো দেখতেও খুব বেশী সময় নেয় না ।

তার মানে এখানে কাজ করে এক জন প্রতিমাসে বেসিক একাঊন্ট থেকে (সরবাধিক) ২১০০ টাকা আয় করতে পারবে।

যদি সে ৩০ দিন কাজ করে । যদি সে ১ দিন কাজ না করে তবে সে ৭০ টাকা কম পাবে এমনি সে জত দিন কাজ করবে তত দিনের টাকা পাবে। এটা তার ফিক্সড ইনকাম।
এ ছারা সে : রেফারেন্স এর মাধ্যমে/Networking এর মাধ্যমে আয় করতে পারে। এ খানে dolancer কোম্পানী Affiliate marketing system flow করে থাকে
affiliate marketing and MLM system এক নয় এ বেপারে জানতে নিচের লিঙ্ক এ ক্লিক করুন

পদ্ধতি ২ : রেফারেন্স এর মাধ্যমে/Networking

আপনার রেফারেন্স এ যদি কেউ ঢুকে তবে আপনি সাথে সাথে পাবেন ১০% বোনাস এটি ডিরেক্ট স্পন্সর বোনাস অর্থাৎ আপনি যদি বেসিক এ ঢুকান তবে পাবেন ৭০০টাকা । যদি মডারেট প্যাকেজ এ ঢুকান তবে পাবেন ২১০০ টাকা আর এডভান্স এ পাবেন ৩৫০০ টাকা এছারা ম্যাচিং বোনাস ১০% এরপর আপনি যদি দুইজন কে ঢুকান তবে আপনি পাবেন পাবেন বেসিক প্যাকেজ হতেই ২১০০টাকা আপনি যাদের কে ঢুকিয়েছেন তারা যদি অন্য কাউকে ঢুকান তবে তারাও যেমন টাকা পাবেন তেমনি আপনিও পাবেন । আপনি যাদেরকে ঢুকিয়েছেন বা আপনার রেফারেন্স এ ঢুকে যারা আবার তাদের রেফারেন্স এ যাদের কে ঢুকিয়েছেন তারা যা আয় করছে বা করেছে তা থেকে আপনিও স্পনন্স্যার হিসেবে বোনাস টাকা পাবেন । বোনাস এর হার ঃ

  • প্রথম ডিরেক্ট স্পন্সর এর আয় এর ৫% দুই পাশেই
  • ২য় ডিরেক্ট স্পন্সর এর আয় এর ৩%
  • ৩য় ডিরেক্ট স্পন্সর এর আয় এর ২%
  • ৪র্থ ডিরেক্ট স্পন্সর এর আয় এর ১%
  • ৫ম ডিরেক্ট স্পন্সর এর আয় এর ০.০৫%

৩ । পদ্ধতি – ৩ : ফ্রিল্যান্সার হিসাবে

এটি বাংলাদেশে নতুন একটি কোম্পানি তাই এখানে এখনো খুব বেশী প্রজেক্ট দেওয়া হয়নি কিন্তু খুব শিঘ্রই এখানে আরও প্রোজেক্ট দেওয়া হবে এবং আপনারা ফ্রিল্যান্সার হিসাবে বিভিন্ন প্রজেক্ট এর কাজ করতে পারবেন । সবগুলো প্রজেক্টই ভেরিফাইড তাই টাকা মাইর যাওয়ার চান্সই নেই ।বর্তমানে project আসা শুরু হয়েছে এবং আরও বাড়বে ।

৪ । পদ্ধতি – ৪ : ওয়েব সাইট লিসিং পদ্ধতিতে

এটি একটি নতুন পন্থা । এ পদ্ধতিতে আপনি company থেকে সাইট লিজ নিয়ে আবার company-কেই লিজ দিতে পারেন ।তাহলে company আপনাকে daily যা দিয়ে লিজ নিবেন তার .50% pay করবে 24 মাস ।যেমন 500 ডলার দিয়ে নিলে per day আপনাকে 2.50 ডলার দিবে ।আপনি চাইলেই এভাবে প্রচুর টাকা আয় করতে পারবেন । এ থেকেই বুঝে নিন লিস থেকে কত টাকা পেতে পারেন ।

এতে যোগ দিলে আপনি আরও কিছু মারাত্নক সুবিধা পাবেন । যেমন : dolancer logo সহ ভিসা কার্ড পাবেন মাত্র ১০০০ টাকায়! আরও অনেক ফিচার এতে আছে ।

৫ । post to earn : খুবই দ্রুত সহজ আর একটা কাজ আসতেছে তাহলো ডাটা এন্ট্রি এর মতো post বা comment করলে আপনাকে প্রতিটার জন্য তিন থেকে চার সেন্ট দিবে এভাবে এখান থেকে প্রচুর আয় সম্ভব ।

টাকা তোলার পদ্ধতি :

টাকা আপনি সরাসরি ওদের ঢাকার মূল অফিস থেকে বা ব্যাংক হতে বা ক্রেডিট কার্ড এর মাধ্যমে তুলতে পারবেন ।

সাইট এড্রেস : www.dolancer.com

=====================================

উত্তর :  বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম।

প্রথমেই আপনাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাচ্ছি যে, আপনি একটি ব্যবসায় বিনিয়োগের পূর্বে তা হালাল নাকি হারাম তা জানার চেষ্টা করেছেন। আল্লাহ তা’আলা সুস্পষ্ট ভাবে বলেন,

الَّذِينَ يَأْكُلُونَ الرِّبَا لَا يَقُومُونَ إِلَّا كَمَا يَقُومُ الَّذِي يَتَخَبَّطُهُ الشَّيْطَانُ مِنَ الْمَسِّ ذَٰلِكَ بِأَنَّهُمْ قَالُوا إِنَّمَا الْبَيْعُ مِثْلُ الرِّبَا وَأَحَلَّ اللَّهُ الْبَيْعَ وَحَرَّمَ الرِّبَا

যারা সুদ খায়, তারা কিয়ামতে দন্ডায়মান হবে, যেভাবে দন্ডায়মান হয় ঐ ব্যক্তি, যাকে শয়তান আসর করে মোহাবিষ্ট করে দেয়। তাদের এ অবস্থার কারণ এই যে, তারা বলেছেঃ ক্রয়-বিক্রয় ও তো সুদ নেয়ারই মত! অথচ আল্লা’হ তা’আলা ক্রয়-বিক্রয় বৈধ করেছেন এবং সুদ হারাম করেছেন। (২:২৭৫)

এ আয়াত থেকে বোঝা যায় যে, হালাল বিনিয়োগ তথা ক্রয়-বিক্রয় আর হারাম বিনিয়োগ তথা সুদ ইত্যাদির বাহ্যিক চেহারা একই মনে হতে পারে। কিন্তু আল্লাহ এর একটিকে হালাল ঘোষণা করেছেন, আর একটিকে হারাম করেছেন। কাজেই যে কোনো মুসলিমের উচিৎ হালাল-হারাম জেনেই তবে বিনিয়োগ করা।

আপনার প্রশ্নে উল্লিখিত সাইটটি সম্পর্কে কিছু কথা বলে নিই।

১. সাইটটি দাবী করছে যে তারা ১৯৯৮ তে শুরু করেছে। সে অনুযায়ী তাদের অভিজ্ঞতার বয়স ১৩ বৎসর। কিন্তু কোন সাইট দিয়ে তারা শুরু করেছে কিংবা আগে কী সাইট ছিল, তা অস্পষ্ট। আর dolancer.com এর বয়স মাত্র কয়েক মাস। ২০শে ফেব্রুয়ারি ২০১১ সাইটটির ডোমেইন কেনা হয়েছে, যা ২০১৭ এর একই তারিখ পর্যন্ত রেজিস্টার্ডকৃত।

দেখুন : http://who.godaddy.com/whois.aspx?domain=dolancer.com&prog_id=GoDaddy

Registered through: GoDaddy.com, Inc. (http://www.godaddy.com)
Domain Name: DOLANCER.COM
Created on: 20-Feb-11
Expires on: 20-Feb-17
Last Updated on: 27-Sep-11

২. এই কয়েক মাসের মধ্যেই তাদের দাবী এই যে, তারা ৪,৮৭৭,১২৯ জন ফ্রীল্যান্সার ও এম্লোয়ারকে মিলিত করেছে ইউএস, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া ও জার্মানী থেকে। দেখুন : http://184.173.136.254/index.php/about

We connect over 4,877,129 employers and freelancers globally from over USA, Canada, Australia & Germany.

অথচ সাইট ইনফোরমেশন দাতা সাইটগুলোর তথ্য বলে তাদের প্রায় ৮০ শতাংশ বা আরো বেশি ভিজিটর বাংলাদেশের। দেখুন : http://www.alexa.com/siteinfo/dolancer.com

৩. বাংলাদেশে তাদের অফিস খোলার পর থেকে এখন পর্যন্ত অনেক ইউজারই কোনো পেমেন্ট পান নি। অনেকে ৫ মাস ধরে রেজিস্টার করেছেন, কোনো টাকা তুলতে পারেননি। তদুপরি শুরু থেকেই সাইটটি ক’দিন পরপর ‘ঠিক করা হচ্ছে/ আপগ্রেড করা হচ্ছে’ বলে বন্ধ থাকছে। আবার অনেকে অভিযোগ করছে যে, তাদের পে-টু-ক্লিক এর বিজ্ঞাপণ পাচ্ছেন না। অনেকে টাকা ফেরত চাচ্ছেন, বাবার পিটুনি খাওয়ার আশঙ্কাও করছেন। দেখুন তাদের অফিসিয়াল এফবি পেইজ এবং তাতে ইউজারদের মন্তব্যগুলো পড়ুন:  https://www.facebook.com/dolancerbd

এবার আসা যাক, সাইটটির অফারকৃত বিভিন্ন কাজের বর্ণনায়।

১. ক্লিক টু আর্ন /পেইড টু ক্লিক ( পিটিসি) : এ সম্পর্কে এই পোষ্টটি পড়তে পারেন : http://yousufsultan.com/posts/affiliate-marketing-and-islam/

এটি মৌলিক ভাবে জায়েয। তবে কী ধরনের বিজ্ঞাপণে ক্লিক করছেন, তার ভিত্তিতে বিধান পরিবর্তিত হতে পারে।

২. রেফারেন্স এর মাধ্যমে/Networking : বিষয়টি MLM সিস্টেমই মনে হচ্ছে। পূর্বে লিংক দেয়া পোষ্টেই এর উত্তর পেয়ে যাবেন।

৩. ফ্রিল্যান্সার হিসাবে : এটি মৌলিক ভাবে জায়েয। তবে সাইটটি এখনো এ কাজে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে পারেনি। আজ যখন লেখাটি লিখছি, তখন সাইটে কোনো প্রজেক্ট নেই।

৪. : ওয়েব সাইট লিসিং পদ্ধতিতে : লিজ নেয়া/দেয়ার ক্ষেত্রে পৃথিবীর অধিকাংশ ফাইন্যান্সিয়াল প্রতিষ্ঠানে সুদ যুক্ত থাকে। এ বিষয়ে তাদের বিস্তারিত এ্যাগরিমেন্ট না দেখে বলা যাচ্ছে না। সাইটে এ বিষয়ে কিছু বলা নেই।

৫. ডাটা এন্ট্রি/ পোষ্ট বা কমেন্ট করা মৌলিক ভাবে বৈধ। এর সাথে অন্য কোনো শর্ত/কন্ডিশন থাকলে তার ওপর বৈধতা আবর্তিত হবে।

পরিশেষে বলব, এ ধরনের সাইটগুলো এখন পর্যন্ত ধোঁকার চেয়ে বেশি কিছু বেশি মানুষকে দিতে পারে নি। এর চেয়ে বরং অন্য কোনো হালাল ব্যবসা করলে কেমন হয়? বর্তমানে ইন্টারনেটের প্রসারে কতরকম ব্যবসার কথা চিন্তা করা যায়।

  • ১. ফ্ল্যাট রেন্টিং
  • ২. রিয়েল এস্টেট
  • ৩. কুরবানীর পশু
  • ৪. দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় জিনিস
  • ৫. কাঁচা বাজার
  • ৬. খাতা-কলম

ইত্যাদি ইত্যাদি।

৫-৬ জন বন্ধু মিলে সবার বেসিক প্যাকেজের টাকা একত্র করলেই কিন্তু এর চেয়ে ভালো ব্যবসার কথা অনলাইনে চিন্তা করা যায়। মুনাফাও থাকবে, হালালও হবে, সম্মানও জুটবে।

শেয়ার বাজারের মতো বেকার যুবকদের বাবা-মার কষ্টসাধ্য টাকা-পয়সা এনে এসব জায়গায় বিনিয়োগ করে অলস হয়ে কী লাভ?

আল্লাহ আমাদের সঠিক পথের দিশা দিন। আমীন।