সড়ক দুর্ঘটনা রোধে চালকের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ:

আমাদের ভাই-বোন এই কিশোর-কিশোরীরা যে শক্তিশালী বার্তা দিচ্ছে, তা কি আমরা পড়তে পারছি? বার্তাটা কিন্তু এনকৃপ্টেড না, খুব সহজ সরল।

বাংলাদেশের অবকাঠামোগত সবচেয়ে বেশি সমস্যা জর্জরিত জায়গা তথা সড়কের নানাবিধ সমস্যা, যেমন দুর্ঘটনা, ট্রাফিক আইন না মানা, বিশৃঙ্খলা, এমনকি ট্রাফিক জ্যাম – এই সবকিছুর পেছনে যে বিষয়টা দায়ী সেটা হলো অনিয়ম ও দুর্নীতি।

লাইসেন্সবিহীন চালক মানে:

– চালক কোনো নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতিতে গাড়ি চালনা শেখেন নি
– বা নিয়মানুগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন নি
এর অর্থ, সড়ক নিরাপত্তা, নিরাপদ ও দায়িত্বশীল ড্রাইভিং সম্পর্কে তার কোনো ধারণা নেই বা যোগ্যতা নেই।

এমন ড্রাইভারের হাতে গাড়ী বা কোনো পরিবহনের স্টিয়ারিং থাকলে যা যা ঘটবে:

– তিনি ট্রাফিক সাইন/ লাইট কখনো মানবেন না, ট্রাফিক লাইট তার কাছে অনর্থক ব্যাপার মনে হবে
– লেন করা হলেও লেন দিয়ে চলবেন না, কারণ এর গুরুত্ব তিনি কখনো বুঝবেন না
– সামনের ও আশ-পাশের পরিবহনের থেকে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখবেন না, কারণ তার কাছে ড্রাইভিং কেবল জোরে এক্সেলেটরে চাপ দেয়া এবং ব্রেক কষা – এর বাইরে কিছু না
– গতির নির্দেশনা মানবেন না
– পথচারীদের তোয়াক্কা করবেন না
– আশ-পাশের পরিবহনকে প্রয়োজনে জায়গা দিবেন না, কারণ ড্রাইভিং তার কাছে গাড়ির গেইমের মতো, কাউকে তোয়াক্কা করার প্রয়োজন তিনি বুঝবেন না
– ড্রাইভিংয়ের নিয়ম মানবেন না, মাদকাসক্ত হয়ে, ঘুম বা টয়লেট চাপলে, রাগ বা ক্ষোভ নিয়ে, মাথাব্যথা বা অসুস্থতা নিয়েও তিনি পথে নামবেন
– এবং আরো অনেক সমস্যা সৃষ্টি হবে।

… এসবের ফলাফল আরো একটি দুর্ঘটনা, আরো একটি মৃত্যু। সড়ক দুর্ঘটনার জন্য অধিকাংশ ক্ষেত্রে দায়ী সর্বপ্রথম ড্রাইভার নিজে – যেমন, মোবাইলে কথা বলা বা অন্য কোনো কারণে মনোযোগ বিঘ্নিত হওয়া, গতির প্রতিযোগিতা, মাদকাসক্ত ড্রাইভার, উচ্ছৃঙ্খল ড্রাইভিং, ট্রাফিক সাইন অমান্য করা, অনিরাপদ উপায়ে লেন পরিবর্তন, উল্টো বা ভুল পথে চালানো ইত্যাদি। এরপর হলো গাড়ির ফিটনেস ও পথচারী বা অন্য যানবাহনগুলোর দায়িত্বহীনতা, এরপর সড়কের অবস্থা বা আবহাওয়ার প্রতিকূলতা – বৃষ্টি বা পর্যাপ্ত আলো না থাকা ইত্যাদি।

কাজেই সড়ক দুর্ঘটনা রোধে চালকের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে একই সাথে পথচারীদেরকেও সচেতন করতে হবে। যত্রতত্র সড়ক পারাপার না করা, ঝুঁকি না নেয় ইত্যাদি। এবং আমাদের দেশে মোটরবিহীন যান আলাদা লেনে চলতে দেয়া।

আমদের ছোট ভাই-বোনেরা লাইসেন্স চেক করার মাধ্যমে এ জায়গাটায় আমাদের শক্তিশালী বার্তা দিয়ে যাচ্ছে। তারা জানাচ্ছে, প্রশাসন চাইলে মাত্র অল্প কয়েক দিনেই পুরো ট্রাফিক সিস্টেমকে সজাগ ও নিরাপদ করার সম্ভব। শুধু প্রয়োজন সৎ ও যোগ্য নেতৃত্বের।

খবর: https://www.thedailystar.net/…/students-stop-police-dig-fin…

কলরবের শিল্পীদের ভাষায়: https://www.facebook.com/AbuRayhanKlbsg.Official/videos/935602743279012/